Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য

-: আয়কর সংক্রান্ত কতিপয় জ্ঞতব্য বিষয় :-

 

১। আয়কর রিটার্ণ, সম্পদ ও দায় বিবরণী এবং জীবন-যাত্রার মান সম্পর্কিত ‘তথ্য ছকে’ সঠিক তথ্য

     প্রদান করে ঘোষিত আয়ের ভিত্তিতে কর পরিশোধ করা প্রত্যেক করদাতার নাগরিক দায়িত্ব।

২। প্রদর্শিত আয়ের স্বপক্ষে হিসাবের খাতাপত্র এবং তথ্য প্রমাণ সংরক্ষণ করা প্রয়োজন।

৩। আয়কর রিটার্ণ প্রস্ত্তত এবং তা দাখিলের ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত সাবধানতা অবলম্বন করা আবশ্যক।

৪। জরিমানা পরিহারের জন্য বিধিবদ্ধ সময়সীমার মধ্যে তথ্য প্রমানসহ আয়কর রিটার্ন দাখিল করা

    বাঞ্ছনীয়।

৫। সম্ভাব্য সরল সুদ পরিহারকল্পে যথাসময়ে অগ্রিম করের কিসিত্ম পরিশোধ করা আবশ্যক।

৬। উৎসে কর কর্তনকারী সকল কর্তৃপক্ষের জন্য কর্তনকৃত/সংগৃহীত আয়কর বিধিসম্মত সময়সীমার

     মধ্যে সরকারী কোষাগারে জমা প্রদান করে কর বিভাগে তথ্য প্রেরণ করা বাঞ্ছনীয়।

৭। সম্ভাব্য জটিলতা পরিহার কল্পে আয়ের কোন্ উৎস হতে আয়কর কর্তন করা হয়েছে তার তথ্যাবলী

    সংগ্রহ করে রাখা আবশ্যক।

৮। কর নির্ধারণী আদেশের বিষয়ে কোন আপত্তি থাকলে আদেশ প্রাপ্তির ৪৫ দিনের মধ্যে আপীল দায়ের

     এবং আপীল আদেশ প্রাপ্তির ৬০ দিনের মধ্যে ট্রাইবুন্যালে আবেদন দাখিল করতে হয়।

৯। কর অফিসের নোটিশ বা পত্র পেলে অবহেলা না করে দ্রম্নত তার জবাব প্রদান করা বাঞ্ছনীয়।

১০।(ক) অনলাইনে টিআইএন রেজিস্ট্রেশন/রি-রেজিস্ট্রেশনপূর্বক সার্টিফিকেটের প্রয়োজন হলে

    নিমণলিখিত তথ্যাদি সহ রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করে সংশিস্নষ্ট সার্কেল অফিসে অথবা কর তথ্য ও   

    সেবা কেন্দ্রে দাখিল করতে হবেঃ

·   জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি।

·   করদাতার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন(যে কোন অপারেটর)।

·   অবশ্যই করদাতার স্বয়ং উপস্থিতি।

·   জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে ১(এক) কপি রঙিন ছবিসহ পাসপোর্টের মূলকপি ও ফটোকপি।

·   অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ১ কপি রঙিন ছবি, জন্মসনদ ও অভিভাবকের ই-টিআইএন সদনপত্র।

·   পুরাতন করদাতাদের ক্ষেত্রে আয়কর সনদপত্র অথবা আয়কর রিটার্ণ দাখিলের প্রাপ্তি স্বীকার

    পত্র।

·   করদাতা ব্যবসায়ী হলে তার ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন নম্বর(যদি থাকে)।

·   ফার্মের ই-টিআইএন নেয়ার ক্ষেত্রে অংশীদারদের ই-টিআইএন সনদ দাখিল করতে হবে।

·   মেমোরেন্ডাম অব আর্টিকেলস  কোম্পানীর ক্ষেত্রে।

·   লিমিটেড কোম্পানীর ই-টিআইএন নেয়ার ক্ষেত্রে ইনকর্পোরেশন নম্বর ও তারিখসহ শেয়ার

    হোল্ডার পরিচালকগণের ই-টিআইএন সনদ দাখিল করতে হবে। 

 

(খ) ট্যাক্স ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটঃ

      ট্যাক্স ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রয়োজন হলে কর পরিশোধের প্রমাণসহ (যদি থাকে) সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হয়। এই জাতীয় আবেদনের নির্ধারিত কোন ফরম নেই।

 

(গ) সার্টিফাইড কপিঃ

      কর নির্ধারণী আদেশ, সম্পদ বিবরণীসহ অন্যান্য দলিলাদির সার্টিফাইড কপি প্রয়োজন হলে নির্ধারিত কপিং ফি পরিশোধ করে সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হয়।

 

 

*** ‘‘সবাই মিলে দেব কর দেশ হবে স্ব-নির্ভর।’’

 

*** ‘‘আপনার দেয়া আয়করের টাকা আপনার জন্যই

       ব্যয় করা হয়।’’